Posted on

দাঁতের যত্ন – দন্তক্ষয় থেকে মুখের সংক্রমণ

দাঁতের যত্ন – দন্তক্ষয় থেকে মুখের সংক্রমণ

 

প্রতিদিন দাঁতের যত্ন স্বাভাবিক ভাবে না নিলে দন্তক্ষয় বা ডেন্টাল ক্যারিজ হতে পারে। দন্তক্ষয়কে রোগীরা অনেক সময় অবহেলা করে থাকেন। ফলে ‍সুক্ষ  একটি দন্তক্ষয় থেকে দন্তমজ্জা পর্যন্ত আক্রান্ত হয়ে দন্ত মজ্জায় প্রদাহ সৃষ্টি করে থাকে। পর্যায়ক্রমে এ সংক্রমণ দাতের গোড়ায় কোষে বিস্তৃতি লাভ করে থাকে। চিকিৎসা গ্রহণ না করলে তা খুব দ্রুত হাড়ে সংক্রমিত হয়ে থাকে। সংক্রমণের মাত্রা বেশি হয়ে গেলে হাড় ছিদ্র পর্যন্ত হয়ে যেতে পারে।  এরপর সংক্রমণ মুখের কোষ বা কলার একটি স্থানব্যাপী বিস্তৃতি লাভ করে থাকে যাকে ডাক্তারি ভাষায় স্পেস ইনফেকশন বলা হয়। এ ধরনের স্পেস ইনফেকশনকে লাডউইগস এনজাইনা বলা হয়। ল্যাডউইগস এনজাইনকে সাবম্যান্ডিবুলার বা সাবলিংগুয়াল স্পেস সংক্রমণও বলা হয়। ল্যাডউইগাস এনজাইনা এক ধরনের সেলুলাইটিস। শুধু ডেন্টাল ক্যারিজ নয় বরং যে কোন ডেন্টাল সংক্রমণ থেকে এমনটি হতে পারে। ল্যাডউইগস এনজাইনা হলে রোগীরা গলার পাশে ফুলে গিয়ে শ্বাসনালীর উপর চাপ প্রয়োগের ফলে শ্বাস নেয়ার সময় রোগী সীমাহীন কষ্ট অনুভব করে থাকেন। কোন কোন ক্ষেত্রে এ ধরনের পরিস্থিতিতে রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। মনে রাখতে হবে। লাডউইগস এনজাইনা জীবনের প্রতি হুমকি স্বরূপ হতে পারে। জরুরি অবস্থায় ট্রাকিওসটমীর প্রয়োজন দেখা দিতে পারে। শ্বাসকষ্ট ছাড়া রোগীর জ্বর,  ঘাড়ে ব্যথা, ঘাড় ফুলে যাওয়া, ঘাড় লাল হয়ে যাওয়া, দুর্বলতা, খাবার গিলতে সমস্যা হওয়া ইত্যাদি লক্ষণসমূহ দেখা দিতে পারে। পেনিসিলিন জাতীয় এন্টিবায়োটিক স্বাভাবিক ডোজের চেয়ে বেশি পরিমানে দেয়া যেতে পারে বয়স,  উচ্চতা ও ওজন অনুযায়ী। তাই দন্তক্ষয় বা দাতের গোড়ায় কোন সংক্রমণকে কোনভাবেই অবহেলা করা ঠিক নয়। দন্তক্ষয় দেখা দিলে প্রয়েজন অনুযায়ী সঠিক পদ্ধতিতে ফিলিং করিয়ে নিতে হবে। তবে দন্তক্ষয় প্রতিরোধ সবচেয়ে ভালো। তাই প্রতিদিন সকালে নাস্তার পর এবং রাতে ঘুমানোর আগে দাঁত ব্রাশ করা উচিত। এছাড়া ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করা ভালো। মাঝে মাঝে প্রয়োজনমত কসমেটিক মাউথওয়াশ ব্যবহারে করা যেতে পারে। মানে রাখতে হবে যে, সব মাউথওয়াশ সবাই ব্যবহার করতে পারে না। কেবল মাত্র ভুল মাউথওয়াশ ব্যবহার করার কারণে আপনার মুখে আলসার দেখা দিতে পারে বা আলসার থাকলে তা সহজে ভালো হবে না। দন্তক্ষয় ছাড়া দাঁতের গোড়ায় বা পাশে কোন সংক্রমণ দেখা দিলে কার্যকর চিকিৎসা দ্রুত গ্রহণ করতে হবে।

 

ডা. মো. ফারুক হোসেন

মুখ ও দন্তরোগ বিশেষজ্ঞ

 

Please follow and like us:
error
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *